জেলা

আম্পানের করনে স্বস্তি পেল দক্ষিন দিনাজপুর

পল মৈত্র, ২০-ই মে ; দক্ষিণ দিনাজপুরঃ রাত থেকে আকাশের মুখ ভার সকাল থেকে এখনো পর্যন্ত ঝির ঝিরে বৃষ্টিতে ভিজছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা কার্যত গত কয়েকদিন আগে হাওয়া অফিসের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল ঘূর্ণিঝড় প্রবলবেগে শক্তিশালী হয়ে পশ্চিমবঙ্গের বুকে আছে পড়তে চলেছে তার কিছুটা রেশ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা ও রাজ্য জুড়ে আজ দুপুর থেকে তার প্রভাব পড়বে বলে হাওয়া অফিসের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল।

তবে সেইসব উপেক্ষা করে চলতি সপ্তাহে পবিত্র ঈদ ও জামাইষষ্ঠীর কারনে গঙ্গারামপুর শহর জুড়ে ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেল বিভিন্ন দোকানে তারা কার্যত এইসবকে উপেক্ষা করে বিভিন্ন দোকানপাটে জিনিস কিনতে তাদের দেখা গেল।পাশাপাশি সকাল থেকে বৃষ্টি পড়েছে গত কয়েকদিন ধরে সূর্যের তীব্র দাবদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে উঠেছিল অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল জেলাবাসীরা তবে কিছুটা স্বস্তি পেল জেলা তা বলাই বাহুল্য করোনা ভাইরাস দমনে দেশব্যাপী চলছে লকডাউন পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় গত কয়েকদিন আগে সরকারি নির্দেশিকার পর গ্রীন জোন ঘোষনা করা ঘোষণা করা হয়েছে এই গ্রীন জোনের আওতায় পড়া দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন দোকান খুলেছে মানুষ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে।ডাক্তার পুলিশ প্রশাসন রাজ্যবাসী পাশে রয়েছে তবে তার সঙ্গে নতুনভাবে সংযোজিত হলো আম্পফান নামে ঘূর্ণিঝড়ের জানা গেছে কিছুক্ষণ বাদে আছে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তার রেশ থাকবে কিছুটা কম বলে সূত্রের খবর 40 থেকে 50 কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যাবে দক্ষিণ দিনাজপুর উত্তরদিনাজপুর ও মালদহ দিয়ে। জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে মাইকিং করে কৃষকদের সচেতন থাকার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে পাশাপাশি সকলকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের উপর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে এই শক্তিশালী আম্পফান ঝড়। তথাকথিত ভাবে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসন ঝড়ের মোকাবিলায় তৈরি হয়ে রয়েছে। তবে বলাই বাহুল্য গত কয়েকদিন ধরে সূর্যের তীব্র দাবদাহে অতিষ্ঠ জেলাবাসীরা আম্পফান ঝড়ের রেশে ঠান্ডা মিঠেল হাওয়ায় খানিকক্ষণের জন্য স্বস্তি পেল।